আইটি শিক্ষা মেনু

মজিলা ফায়ারফক্স ও গুগল ক্রোম – কোনটি সেরা ?

ব্রাউজার যুদ্ধ নতুন কিছু নয়। আর এই যুদ্ধের সেরা দুই খেলোয়াড হচ্ছে মজিলা ফায়ারফক্স এবং এবং গুগল ক্রোম । সেরা খেলোয়াড হলেও প্রতিদন্ধীদ্বয় সমান নয় বরং এক একটি ক্ষেত্রে এক একটি সেরা ।

অভিজ্ঞতার আলোকে যদি বলা হয় ২০০২ সালে যাত্রা শুরু করা ফায়ারফক্স ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করা গুগল ক্রোমের তুলানায় অনেক বেশী অভিজ্ঞ। আপনি যদি দুটি ব্রাউজারকে পাশাপাশি রাখেন তবে বুঝতে পারবেন কে সেরা ?

ফিচারের তুলানামুলক আলোচনা
অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দুটি ব্রাউজারের মধ্যে সাদৃশ্য রয়েছে। দুটি ব্রাউজারই ট্যাব ব্রাউজিং, এক্সটেনশন, থিম এবং প্লাগিন সাপোর্ট করে ।

কাষ্টমাইজেশনে যখন যাবেন তখন আলাদা কিছু লক্ষ্য করা যায়। যেহেতু মজিলা ফায়ারফক্স ১ যুগের বেশী সময় ধরে অনলাইনে সেবা প্রদান করে যাচ্ছে তাই ফায়ারফক্সের এক্সটেনশনের তালিকাটি অনেক দীর্ঘ। গুগল ক্রোমের ও নিজস্ব এক্সটেনশন আছে তবে তা ফায়ারফক্সের তুলানায় অনেক কম। যদি এই একটি বিষয় নিয়ে পার্থক্য তুলে ধরা হয় তবে সবাই বলবে ফায়ারফক্সে যেকোন কিছুর জন্য এক্সটেনশন পাওযা যায় যা গুগল ক্রোমে নেই । তবে আশার কথা হচ্ছে গুগল ক্রোমের এক্সটেনশনের সংখ্য বাড়ছে।

অন্যান্য ফিচারগুলোর মধ্যে রয়েছে গুগল ক্রোমের ফ্লাশ সাপোর্ট এবং ফায়ারফক্সের পিডিএফ রিডার সাপোর্ট।

দক্ষতা

ফায়ারফক্স সবসময়ই ব্রাউজিং এর গতি বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে অপরদিকে গুগল ক্রোম শুরু থেকে গতিময় ব্রাউজিং এর নিশ্চয়তা প্রদান করে আসছে। গুগল ক্রোমের একটি প্রধান দিক হল ব্রাউজারের অ্যাড্রেসবার অটোফিল হওয়া। এটি মুলত হয় গুগল ক্রোমে গুগল সার্চ স্বয়ংক্রিয়বাবে যুক্ত থাকার কারনে। তাই বলে ফায়ারফক্স
ধীরগতির নয় বরং গুগল ক্রোম মজিলার চেয়ে বেশী গতি সম্পন্ন ।

আবার দুটি ব্রাউজারেরই গতি অনেক কমে যায় যাকে ওয়েবের ভাষায় ব্লোটিং bloating বলা হয় । র‌্যাম ও হার্ড ড্রাইভের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে গুগল ক্রোম হার্ড ড্রাইভের উপর নির্ভর করলেও মজিলা ফায়ারফক্স অনেকাংশে র‌্যামের উপর নির্ভরশীল।

তাহলে কে বিজয়ী
দুটি ব্রাউজারেই উদ্দ্যেশ্য এক, কিন্তু প্রত্যেকটি ব্রাউজার ব্যবহারকারীদের নিকট আলাদা আলাদা আবেদন রয়েছে। ওপেন সোর্স হিসাবে ফায়ারফক্স থুব সহজে কাষ্টমাইজেশন , থিম এবং সুবিশাল কমিউনিটি থাকার কারনে অনেকেই ফায়ারফক্সের পক্ষে মতামত দিবেন। ফায়ারফক্সের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে তার বিল্টইন (built-in) ফিচারগুলোও চাইলে পরিবর্তন করা যায়।

আবার গুগলের সাথে সম্পৃক্তরা গুগল ক্রোম ব্যবহার করতে চান কারণ খুব সহজে জিমেইল, গুগল প্লাস, ইউটিউব, Google সার্চ, মানচিত্র ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন।
আবার অনেকেই বলে উঠবেন ফাযারফক্সেও এসকল ফিচার ব্যবহার করা যায় । উত্তর হ্যা ব্যবহার করা যায় । গুগল ক্রোম এর ক্রোমকাষ্ট Chromecast প্লাগিনটি শুধু গুগলের রয়েছে যা ফায়ারফক্সে ব্যবহার করা সম্ভব নয়।

তাই ব্যবহারকারীর উপর নির্ভর করে কোনটি সবচেয়ে ভাল। বিজয়ী কাকে দেওয়া যায় আপনারা কমেন্টে জানাতে পারেন ।

এই বিষয়ে আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন

মেহের নিগার
চলার পথে কখন প্রযুক্তির সাথে যুক্ত হয়েছি জানি না । আইটি শিক্ষায় আমাকে প্রযুক্তির পথে দিয়েছে উৎসাহ আর অনুপ্রেরনা। তাই আইটি শিক্ষার জন্য লিখি। ধন্যবাদ আইটি শিক্ষাকে ।

No comments

Leave a Reply

ইমেইলের মাধ্যমে আমাদের পোষ্ট সমুহ পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

ফেইসবুকে আমরা