আইটি শিক্ষা মেনু

ফেইসবুক, টুইটার ফলোয়ারদের সবসময় মাতিয়ে রাখূন

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কিংবা নিজের পোষ্টে লাইক কমেন্ট বেশী হলে অনেকেই নিজেকে গর্বিতভাবেন । এরই লক্ষ্যে বাংলাদেশ সহ পৃথিবীর অনেক দেশেই দেখা যায় একটি পোষ্ট প্রায় বিরক্তির কারন হয়ে দাড়িয়েছে “ADD ME” । ফেইক অ্যাকাউন্ট এবং এই অ্যাডমির কল্যানে অনেকেই যেমন বিরক্ত আবার অনেকেই নষ্ট করছেন নিজের ব্যাক্তিত্ব । আসলেই কি এই পদ্ধতি কার্যকরী। কখনোই নয়।শুধু মাত্র মজার বা হাসির বিষয়বস্তু দিয়েই হযে উঠতে পারেন আপনি জনপ্রিয়। “হাসি” সমগ্র পৃথিবীর প্রথম ভাষা। বিভিন্ন দেশ, সংষ্কৃতি বয়স এবং এলাকার মানুষের মধ্যে সেতু বন্ধন হতে পারে এই হাসি ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এই হাসিই করে তুলতে পারে অন্যন্য সাধারণ । আপনার প্রোডাক্ট ব্রান্ডিং এর জন্য অন্যতম বিষয় হতে পারে মজার এবং হাস্যকর পোষ্ট। তাই চেষ্টা করুন আপনার ভিজিটরদের হাসাতে ।
পড়ুন : ফেইসবুক ব্যবহার করে দেউলিয়া থেকে কোটি পতি হওয়ার চমকপ্রদ ঘটনা
আজকেই একটু সার্চ দিয়ে দেখুন হাসির পেইজগুলোর লাইক কত ?? কোন পোষ্ট এ কেমন লাইক পড়ে ?? জেনে নিন আপনি কেন মজার পোষ্ট দিবেন বৈজ্ঞানিক ব্যাখাসহ ।

ক) একতা সৃষ্টি করে পারে হাসি 
হাসি সামাজিক । আমরা সাধারণত একা যখন থাকি তার চেয়ে ৩০গুন বেশী হাসি যখন অন্যদের সাথে থাকি । মেরিল্যান্ড বেল্টিমোর কাউন্টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইকোলোজি বিষয়ের প্রফেসর রবার্ট আর প্রোভিন এর মতে , হাসি দুঃচিন্তা দুর করে এবং নিজের গ্রুপ বা কমিউনিটির মধ্যে একতার সৃষ্টি করে । তাই আপনার ফেইসবুক ফ্যান, টুইটার ফলোয়ারদের মধ্যে কমিউনিটি এবং যোগাযোগ তৈরী করার জন্য মজার বিষয় এবং ছবি পোষ্ট করুন । সম্ভব হলে অনেক গুরুগম্ভীর বিষয়ও হাসির মাধ্যমে বুঝানোর চেষ্টা করুন ।
খ) ইমোশনাল রেসপন্স
একজন মানুষ যখন হাসে তখন শরীরে এন্ড্রোফিন নিঃসৃত হয়। আমাদের ইমিউনো সিস্টেমকে ত্বরান্বিত করে , মানসিক ও শারীরিক ক্লান্তি দুর করে । এই শারীরিক এবং রাসায়নিক অনুভুতিগুলো মানুষের নিজের নিয়ন্ত্রন এ থাকে না । আপনার সোশ্যাল মিডিয়া কন্টেন্ট হাসির বিষয় থাকলে আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কেও একটি ভাল ধারনা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই মস্তিষ্কে চলে আসবে ।
গ. আপনার ব্রান্ডকে সহজেই মনে থাকবে 
একটি গবেষনায় জানা যায় , প্রায় ৪২% শুভ স্মৃতি মানুষ ভুলে যায় ৬০% নেগেটিভ স্মৃতিগুলো মানুষের মষ্তিষ্ককে জ্যাম করে রাখে। ফেইসবুকের একটি পোষ্ট বা ইউটিউব এর একটি ভিডিও মনে রাখার সময় কই। কিন্তু চিন্তা করুন একটি জোকস বা গল্প যা তকে নির্মল আনন্দ দিয়েছিল অনেক সময় ধরে মরে থাকবে যা আপনার প্রোডাক্ট এর লং টার্ম ব্রান্ডিং এ সাহায্য করবে ।

ঘ. আপনার ফ্যানদের স্মৃতি হয়ে থাকতে পারেন।
একটি মানবিক বা হাসির ঘটনা হতে পারে আপনার কোন ফ্যানদের স্মৃতি । ১ মিনিট ভাবুন। স্কুলে আপনার কোন স্যারটিকে সবচেয়ে বেশী মিস করেন । যেই স্যারটি হাসতে হাসতে অনেক উপদেশ দিত অনেক কিছু শিখাতো তাকেই নয় কি?? আপনার ফ্যানদের মধ্যে যোগসুত্র স্থাপনের অন্যতম উপায় হতে পারে একটি মজার পোষ্ট।

আবদুল আ্উয়াল
আইটির সাথে সখ্যতা বহুদিনের । চেষ্টা করি সমাজ পরিবর্তনের একটি অংশ হউক আইটি। সেই লক্ষেই প্রতিষ্ঠা আইটি শিক্ষা একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান হিসাবে সকলের দরজায় আইটির সুফলগুলো পৌছে দিতে চেষ্ঠা করি।

No comments

Leave a Reply

ইমেইলের মাধ্যমে আমাদের পোষ্ট সমুহ পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

ফেইসবুকে আমরা