আইটি শিক্ষা মেনু

ইউটিউব মার্কেটিং প্রাথমিক ধাপ হয়ে উঠুন সফল ইউটিউবার

আপনার কি ব্যবসায়িক উদ্দ্যেশ্যে খোলা ইউটিউব চ্যানেল আছে ?আপনি কি ইউটিউবের ভিডিও আর বেশী মানুষের কাছে প্রদর্শন করতে চান ?একটি ভিডিও ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করার পর নিচের কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওকে আরও বেশী মানুষের কাছে পৌছে দিতে পারেন এবং তা ভিউয়াররা যেন সহজেই খুজে পায় তার ব্যবস্থা করতে পারেন ।

চ্যানেল অপটিমাইজেশন

আপনার ভিডিওটি যেন ইউটিউব সার্চে সহজেই খুজে পায় তার জন্য প্রথমেই আপনার চ্যানেলটি অপটিমাইজেশন করুন ।

আপনার চ্যানেলটি কতটুকু শক্তিশালী এবং বিশ্বস্ত ( আপনার চ্যানেল প্রদর্শন সংখ্যা, ভিডিও প্রদর্শন সংখ্যা, সাবস্ক্রাইবার ইত্যাদি ) ইউটিউব সার্চ র‌্যাংকিং এর জন্য গুরুত্বপুর্ণ । অবশ্যই আপনার চ্যানেলটি যদি নতুন এবং সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা কম হয় তবে এটির জন্য আপনাকে ধৈর্য ধরতে হবে । কিন্তু নিদির্ষ্ট কিছু অপটিমাইজেশন প্রায় সকল চ্যানেলেরই করা যায়। আপনার চ্যানেলটি নতুন বা কয়েকবছরের পুরাতন যাই হোক ।

ছোট কিন্তু বর্ণনামুলক চ্যানেল নাম পছন্দ করুন
আপনার চ্যানেলের নামটি এমন হওয়া উচিত তার নাম শুনেই নে বুঝা যায় চ্যানেলটি কি বিষয়ে তৈরী করা হয়েছে ? কি ধরনের ভিডিও এখানে পাওয়া যাবে ? চ্যানেলের নামটি যেন সহজে মনে রাখা যায় এবং তা অতিরিক্ত বড় না হয়ে ছোট হলেই ভাল ।

ইউটিউব প্লেবুকের (লিংক) ব্যবহৃত ভাইস চ্যানেল (লিংক) সুন্দর বর্ণনার ভাল উদাহরণ হতে পারে। চ্যানেলের বর্ণনায় ব্যবহারকারী কি ধরনের ভিডিও পাবেন তার বর্ণনা দেওয়া থাকে । এর সাথে অবশ্যই প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড নির্বাচন করুন ।

অতিরিক্ত তথ্য সমুহ যোগ করুন
চ্যানেল আর্টের জন্য কিছু সময় ব্যয় করুন । এমন কোন আইকন বা লোগো নির্বাচন করুন যেন তা আপনার ব্রান্ডিং এর পরিচয় বহন করে। আকর্ষনীয় কাভার ফটো এবং আপনার প্রোফাইল তথ্য সমৃদ্ধ করুন । চেষ্টা করুন যত বেশী তথ্য প্রদান করা যায়।

আপনার চ্যানেলটি ওয়েবসাইটের সাথে যুক্ত করুন
আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি ওয়েবসাইটের সাথে যুক্ত করুন। তাতে আপনার ভিজিটররা আপনার ইউটিউবে অস্তিত্ব সম্পর্কে জানতে পারবে। সম্ভব হলে ইউটিউব ভিডিও আপনার সাইটে প্রদর্শন করুন । তাহলে তা শুধু আপনার সাইটে ভিডিও ভিউ এর সংখ্যা বাড়াবে না বরং ইউটিউব সার্চে প্রথম দিকে প্রদর্শন করবে ।

ভিডিও অপটিমাইজেশন

চ্যানেল অপটিমাইজেশনের পরবর্তী ধাপ ভিডিও অপটিমাইজেশন। ভিডিও অপটিমাইজেশন বলতে বুঝায় আপনার ভিডিওটি যেন ইউটিউব সার্চে যেন তা প্রথমদিকে প্রদর্শন করে। ভিডিও মার্কেটিং রে আর কিছু বিষয় দেখথতে পারেন ভিডিও মার্কেটিং টিপস

ভিডিও টাইটেলে কিওয়ার্ডের ব্যবহার
ভিডিও টাইটেলে কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন । তবে ইউটিউব মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন টাইটেল যেন অতিরিক্ত বড় না হয়। একটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখবে আপনার নির্বাচিত কিওয়ার্ডটি যেন ভিডিও সাথে সঙ্গতিপুর্ণ হয়।
মনে রাখবেন , আপনার মুল লক্ষ্য ব্যবহারকারীরা তাই সিস্টেমকে বোকা বানানোর চেষ্টা করবেন না । ব্যবহারকারীরা কাঙ্খিত লিংকে ক্লিক করার পর যদি নিদিষ্ট বিষয়টি খুজে না পায় তবে হতাশ হয় এবং পরবর্তীতে আপনার চ্যানেলটি ব্যবহার করা বা দেখা থেকে বিরত থাকবেন ।

টাইটেলটি সংক্ষিপ্ত রাখার চেষ্টা করুন কিন্তু এমনভাবে লিখবেন যেন তা ভিডিও এর মুল বিষয়কে উপস্থাপন করে ।

সুন্দর বর্ণনা
বর্ণনার ক্ষেত্রে প্রথম ১০০ শব্দের প্রতি গুরুত্বদিন। ইউটিউব সার্চে প্রথম ৩ লাইন প্রদর্শন করে । তাই বর্ণনা দেওয়ার সময় চেষ্টা করুন যেন প্রথম ১০০ শব্দ বা তিনলাইনের মধ্যে ভিডিও এর মুল বক্তব্য উঠে আসে এবং প্রথম ১০০ শব্দের মধ্যে আপনার কিওয়ার্ডটি অন্তর্ভুক্ত করুন ।

ট্যাগ যুক্ত করুন
ট্যাগের সাহায্যে ইউটিউব বুঝতে পারে ভিডিওটি কি সম্পর্কিত ।অতিরিক্ত ট্যাগ ব্যবহার না করে প্রয়োজনীয় ট্যাগ সমুহ যুক্ত করুন যা আপনার ভিডিও এর সাথে সঙ্গতিপুর্ণ। তাই ট্যাগ ইউটিউব মার্কেটিং এর গুরুত্বপুর্ণ বিষয় ।

অ্যানোশন এবং কার্ড যুক্ত করুন
আপনার ভিডিওতে ব্যবহারকারীর মতামতের সংখ্যা বাড়িয়ে দিবে। ভিডিও দেখার পর ব্যবহারকারীকে লাইক, কমেন্টস , সাবস্ক্রাইব করার জন্য মনে করিয়ে দিবে অ্যানোশন (Annotation)।

ইউটিউবে সাম্প্রতিক সময়ে কার্ড সিস্টেম যুক্ত হয়েছে। যা ভবিষ্যতে অ্যানোশনকে প্রতিস্থাপন করবে আশা করা যায়। অ্যানোশন ও কার্ড দুটিই প্রায় একই বিষয় তবে কার্ড অনেক বেশী আকষর্ণীয়।

কাষ্টম খাম্বনেইল যুক্ত করুন
আকর্ষনীয় থাম্বনেইল ব্যবহারকারীকে ভিডিওতে ক্লিক করার জন্য প্রভাবিত কবে ।

প্রাসংগিক প্লে লিষ্টে ভিডিওটি যুক্ত করুন
আপনার ভিডিওটি প্রাসঙ্গিক প্লে লিষ্টে যুক্ত করার মাধ্যমে ব্যবহারকারী সহজেই আপনার ভিডিওগুলোতে বিচরন করতে পারবে ।

অন্যান্য সোশ্যাল চ্যানেলে আপনার ভিডিওটি শেয়ার করুন
বিভিন্ন সোশ্যাল চ্যানেল যেমন ফেসবুক, গুগল প্লাস, টুইটার ইত্যাদিতে শেয়ার করুন ।তা ইউটিউব র‌্যাংকিং সিগনাল হিসাবে বিবেচিত হয়। চ্যানেল সেটিং ব্যবহার করে খুব সহজে আপনি ইউটিউব ভিডিওগুলো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন ।

শেষ কথা
ইউটিউব মার্কেটিং অসংখ্য পদ্ধতির মধ্যে এখানে মৌলিক বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে মাত্র। আপনার জন্য অন্য কোন মতামত থাকে তবে আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানান ।

মেহের নিগার
চলার পথে কখন প্রযুক্তির সাথে যুক্ত হয়েছি জানি না । আইটি শিক্ষায় আমাকে প্রযুক্তির পথে দিয়েছে উৎসাহ আর অনুপ্রেরনা। তাই আইটি শিক্ষার জন্য লিখি। ধন্যবাদ আইটি শিক্ষাকে ।

4 comments

  1. ওবায়দুল says:

    ধন্যবাদ

  2. থ্যাংক ইউ আপু ইউটিউব অ্যাডসেন্স নিয়ে আরও নতুন পোস্ট চাই।

  3. Robiul islam says:

    ভাই তোমার সাইট এ মাউ্চ এর চাকা গুরালে আগাতেই চায় না মনে হয় সাইট টার ওজন অনেক বেশি।

  4. shakib04 shakib04 says:

    ধন্যবাদ ভাইয়া।

Leave a Reply

ইমেইলের মাধ্যমে আমাদের পোষ্ট সমুহ পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

ফেইসবুকে আমরা